যে পদ্ধতিতে ভার্নিয়ার হাইট গেজে মাপ পাওয়া যায় !

ভার্নিয়ার হাইট গেজের পরিমাপ পদ্ধতিঃ ভার্নিয়ার হাইট গেজের বিম অংশটি একটি সমতল পাদদেশ (Base) এর উপর লম্বভাবে স্থাপিত থাকে । সারফেস প্লেট এর উপরে রেখে ব্যবহার করতে হয় বলে এর তলদেশ উত্তমরূপে সমতল ও মসৃণ করা থাকে । (Vernier Height Gauge)

ভার্নিয়ার ক্যালিপার্সের ন্যায় এর বিম অংশটিতেও ভার্নিয়ার স্কেলে একই রকম বিভাগ করা থাকে এবং এক প্রণালীতে মাপ পড়া বা জানা সম্ভব হয় । অর্থাৎ ইঞ্চি ক্রমে এক হাজার ভাগের এক ভাগ বা ০.০০১ ইঞ্চি ও মিলিমিটার ক্রমে ১ মিলিমিটার এর ৫০ ভাগের এক ভাগ বা ০.০২ মিমি সূক্ষ্ম মাপ পাওয়া যায় ।স্লাইডিং হেডের এর সাথে ভার্নিয়ার স্কেল স্থায়ীভাবে আবদ্ধ করা ও দুটি লকিং স্ক্রু সাহায্যে ভার্নিয়ারযুক্ত স্লাইডিং হেডকে স্কেলের সাথে প্রয়োজন মত যে-কোনো স্থানে আবদ্ধ করা যায়।

ফিলার গেজের ব্যবহার বর্ণনা

ফিলার গেজ ছোট গ্যাপ বা ফাঁকের চওড়া মাপ, দুটো জোড়ার মাঝখানের ফাকের মাপ ইত্যাদি বের করতে ব্যবহৃত হয় । সারফেস প্লেট এর ওপর কার্যবস্তু রেখে তার ফ্লাটনেস পরীক্ষা করা যায় । মোটর গাড়ির ইঞ্জিনের ভালভ সেট পরীক্ষা করতেও ফিলার গেজ অতি প্রয়োজনীয় ।

ভার্নিয়ার হাইট গেজ বা Filler gauge
Filler Gauge

ভার্নিয়ার হাইট গেজ কী?

যে যন্ত্রের সাহায্যে কোন লম্ব উপরিতলের উপর সরলরেখা টানতে, কোন সমতল উপরিভাগ হতে নির্দিষ্ট কোন বস্তুর উপরিভাগের উচ্চতা পরিমাপ করতে, গোলাকার বস্তুর সমতল উপরিভাগে কেন্দ্র নির্ণয় করতে অথবা দুই বা ততোধিক বস্তুর উচ্চতার আছে কিনা এটা সূক্ষ্মভাবে পরিমাপ গ্রহণ করতে যে যন্ত্র ব্যবহৃত হয়, তাকে ভার্নিয়ার হাইট গেজ বলে

এ গেজ এর সাহায্যে ০.০২ mm পর্যন্ত সূক্ষ্ম মাপ পাওয়া যায় অর্থাৎ ১ মিলিমিটার এর ৫০ ভাগের এক ভাগ পর্যন্ত পরিমাপ গ্রহণ করা সম্ভব হয় ।

Read More:  অনিরাপদ অবস্থা বলতে কি বুঝায় ?

ভার্নিয়ার হাইট গেজ এর যত্ন ও রক্ষণাবেক্ষণ :

১। ভার্নিয়ার হাইট গেজ একটি দামি সূক্ষ্ম পরিমাপক যন্ত্র । সঙ্গত কারনেই এটাকে যথাযথ ও মনোযোগ সহকারে ব্যবহার এবং সংরক্ষণ করা প্রয়োজন।

২। ভার্নিয়ার হাইট গেজ এর কোন অংশে যাতে মরিচা (Rust) না পড়ে এবং সচল অংশটি যাতে সহজে চলাচল করতে পারে এর জন্য বিম স্কেলের উপরিভাগে এবং স্ক্রু থ্রেড বিশিষ্ট বিভিন্ন স্থানে কিছু দিন অন্তর অন্তর মসৃণকারক তেল প্রয়োগ করতে হবে

৩। হাইট গেজ এর স্কাইবার এর মুখে যাতে কোনো ধুলাবালি বা ময়লা না জমে তার প্রতি লক্ষ্য রাখতে হবে । ব্যবহারের পূর্বে এর স্ক্রাইবারটি উত্তমরূপে মুছে নিতে হবে ।

৪। বেশিদিন অব্যবহৃত থাকলে মরিচা প্রতিরোধক স্প্রে দিয়ে করোনেশন মুক্ত রাখতে হবে ।

৫। কাজের শেষে গেজটি উত্তমরূপে পরিষ্কার করতে হবে। ইত্যাদি।

শেষ কথা :

যদি কোন কিছু বুঝতে সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে কমেন্ট এ জানাতে পারেন । আমরা আপনাকে সম্পূর্ণ সাহায্য করার চেষ্টা করব । আপনাকে টেকি মামা সাথে থাকার জন্য অনেক ধন্যবাদ। যদি এইরকম আরও ইনফরমেটিভ বিষয়ে আর্টিকেল চান তাহলে নোটিফিকেশন অপশন চালু করতে পারেন । তাহলে ভাল থাকবেন। BYE..

মন্তব্য করুন